ব্রেকিং নিউজ

6/recent/ticker-posts

আমি ষড়যন্ত্রের শিকার, অবশেষে মুখোশ নামিয়ে মুখ খুললেন পার্থ

Partha Chatterjee said I am a victim of conspiracy

 নিজস্ব প্রতিনিধি , কলকাতা : মন্ত্রিত্ব খোয়ানোর পরের দিনই বিস্ফোরক মন্তব্য বহিষ্কৃত তৃণমূল নেতা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের। তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার বলে দাবি  তার। শারীরিক পরীক্ষার নিরীক্ষার জন্য শুক্রবার জোকা ইএসআই হাসপাতালে আনা হয় অর্পিতা ও পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে। সেখানে এমনটাই দাবি করেছেন প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী। 

বৃহস্পতিবার তিনটি মন্ত্রিত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের। এমনকি তৃণমূল দলের মহাসচিব পথ থেকেও তাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। জাগো বাংলার সম্পাদকের পর থেকেও তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। মোটকথা মন্ত্রিত্ব এবং তৃণমূলের যে যে পদে পার্থ চট্টোপাধ্যায় ছিলেন সব জায়গা থেকেই তাকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার কুনাল ঘোষ একটি টুইট করেন পরে অবশ্য সেই ট্যুইটি মুছে দেন।ওই ট্যুইটে তার বক্তব্যে পরিষ্কার পার্থ চট্টোপাধ্যায় এই মুহূর্তে দলের বোঝা। তাই তাকে আর দলে রাখা সম্ভব নয়।

অন্যদিকে তৃণমূল দল সম্পর্কে সাধারণ মানুষের একটা ভিন্ন ধারণা তৈরি হচ্ছিল বলে, মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তাই সে দিক থেকে স্বচ্ছতা ফিরিয়ে আনার জন্য এই মুহূর্তে পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে সরিয়ে দেওয়া ছাড়া অন্য কোন উপায় ছিল না বলে মনে করছেন তারা। 

শারীরিক পরীক্ষার জন্য শুক্রবার ফের জোকা ইএসআই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও অর্পিতা মুখোপাধ্যায় কে। হাসপাতালে ঢোকার মুখে সাংবাদিকদের প্রশ্নে বিস্ফোরক দাবি করেন সদ্য বহিস্কৃত তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়। পার্থদা আপনি কি ষড়যন্ত্রের শিকার সাংবাদিকদের প্রশ্নে দৃশ্যত সম্মতি দেন তিনি।

 অন্যদিকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে এদিন ইএসআই হাসপাতালের আনা হয় অর্পিতা মুখোপাধ্যায় কে। হাসপাতালের  ভিতরে যেতে কার্যত অস্বীকার করেন অর্পিতা মুখোপাধ্যায়। কেন্দ্রীয় বাহিনী ও ইডি আধিকারিকরা অগত্যা বাধ্য হয়ে তাকে জোর করে হাসপাতালের ভিতরে নিয়ে যান। সেখানে কান্নায় ভেঙে পড়েন তিনি। এদিকে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের এই দাবিতে জোড় জল্পনা শুরু হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে পাল্টা পরামর্শ দিয়েছেন তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। আইনের পথ খোলা রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

রাজনীতি বিশ্লেষকরা মনে করছেন যেহেতু পার্থ চট্টোপাধ্যায় কে এই মুহূর্তে মন্ত্রীত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং দলের সব পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে । সে কারণে পার্থ চট্টোপাধ্যায় নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করার জন্যই আজ ষড়যন্ত্রের শিকার বলে মন্তব্য করেছেন।

Post a Comment

0 Comments